যাত্রা এখন ছোটো পর্দার বিনোদন

অশ্লীলততার দায়ে দুষ্ট- এমন অভিযোগে নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি যেন শেকল পড়িয়ে দেয়া হয় যাত্রা শিল্পকে। স্বাধীনতার পর প্রথমবারের মতো যাত্রা মঞ্চস্থ করার ওপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা আসে ১৯৯৪ সালে। হুমকির মুখে পড়ে এই ঐতিহ্য। এর অস্তিত্ত্বের সংকট এমনই প্রকট হয় ২০০০ সালের পর এগুলো রীতিমতো বিলুপ্তির পথে এগুতে থাকে। যাত্রা শিল্পীদের আন্দোলন ও আকুতির মুখে মাঝে এই শিল্পকে বাঁচানোর জন্য টেলিভিশনে প্রচারের জন্য যাত্রা মঞ্চস্থ করে সরকার। গ্রামীণ জনপদের লোকজ সংস্কৃতির যাত্রা হয়ে ওঠে ছোটো পর্দার বিনোদন অনুষ্ঠান। পর্দায় যাত্রা বেঁচে থাকলেও মাঠে যাত্রা দলগুলোর মৃত্যু ঘটতে থাকে একের পর এক।

আরো দেখুন

ওষুধ শিল্পে বৈপ্লবিক পরিবর্তন

দেশের ওষুধ শিল্পের গল্প যেনো একটি বিপ্লবের গল্পের মতো। স্বাধীনতার পর মূলত বিদেশি ওষুধের ওপর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *